বন্ধ হতে পারে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম

বন্ধ হতে পারে দেশের ক্রীড়ার আতুড়ঘর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম। ফুটবল নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ফিফা ও এএফসির নীতিমালা অনুযায়ী আন্তর্জাতিক ফুটবল চালানোর জন্য স্টেডিয়ামে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা ও পরিবেশ না থাকায় আসতে পারে এই নিষিধেজ্ঞার খড়গ। আজ রোববার বাফুফে ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ খবর জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

ফুটবলসহ বিভিন্ন ইভেন্ট এখানে হলেও ফিফার মানসম্মত না স্টেডিয়ামটি। এখন বাফুফের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকায় খেলতে দেওয়া হচ্ছে এই স্টেডিয়ামে। সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমরা বর্তমানে যে স্টেডিয়ামে খেলতেছি এটা যে কোনো সময় ফিফা এএফসি বন্ধ করে দিতে পারে। বর্তমানে সম্পর্কের কারণে এখানে খেলতে দিচ্ছে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাফুফে সেক্রেটারি মুঠোফোনে দৈনিক আমাদের সময়কে বলেন, ‘বন্ধ হয়ে যেতে পারে ঠিক এ রকম না। আমি উনার (সালাউদ্দিন) সামনে ছিলাম উনি এটা বোঝাননি। আসলে উনি বোঝাতে চাইছেন খেলা আয়োজন করতে গেলে আমাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। এই মাঠে খেলা আয়োজন করাটা সহজ হয় না আমাদের জন্য। একটা কমপ্লায়েন্স স্টেডিয়াম থাকলে কাজগুলো খুব সহজে করা যায়।’

ফিফা কিংবা এএফসি থেকে কোনো অভিযোগ করা হয়েছে কি না এমন প্রশ্নে সোহাগ বলেন, ‘আসলে এই মাঠের অবস্থাটা উনারা জানে। তাদেরকে মাঠের সুযোগ-সুবিধা ও নিরাপত্তা ঠিক থাকবে কী না এটা নিয়ে নিশ্চয়তা দিতে হয়। আমাদের মাঠের যে অবস্থা যে কোনো সময় দর্শক ঢুকে যেতে পারে। আমাদের এগুলো হবে না এমন নিশ্চয়তা দিতে হয়।’

আধুনিক স্টেডিয়াম নির্মাণের প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন জানিয়ে সালাউদ্দিন বলেন, ‘নির্বাচনের পরে আমি এবং আমার কমিটির মিলে আলাপ করেছি যে, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে যাব। আমরা ওনার কাছে ফিফা কমপ্লেক্স একটা স্টেডিয়াম চাইবো। ইতোমধ্যে এ বিষয়ে আমি কয়েক জায়গায় আলাপ করেছি।’

আগামী ১৩ ও ১৭ নভেম্বর এই বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে নেপালের বিপক্ষে ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ম্যাচ দুটো অনুষ্ঠতি হবে বিকেল পাঁচটায়। করোনাভাইরাসের কারণে অনেকদিন দেশের ফুটবল বন্ধ ছিল। এ ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরবে ফুটবল। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠেয় এ দুটি ম্যাচই উৎসর্গ করা হবে জাতির জনকের নামে।

বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ সামনে রেখে ইতিমধ্যে ঢাকায় চলে এসেছে নেপাল জাতীয় ফুটবল দল। প্রাথমিকভাবে ৪০ জনের কথা বলা হলেও, নেপালের বহরে এসেছে ৩৫ জন। ফিফা র‌্যাংকিংয়ে ১৭০তম স্থানে নেপাল। বাংলাদেশ আছে ১৮৭-তে। হিমালয়ের দেশটির বিপক্ষে সাম্প্রতিক সময়ের ফুটবল দ্বৈরথে বাংলাদেশ বেশ পিছিয়ে।

সর্বশেষ দুটি ম্যাচেই হেরেছে জেমি ডের শিষ্যরা। ২০১৮ সাফ ফুটবলে নিজেদের মাঠে গ্রুপ পর্বে ২-০ গোলে হার। পরের বছর কাঠমান্ডু এসএ গেমসে হারতে হয়েছে ১-০ গোলে। এখন ঘরের মাঠে জামাল ভূঁঁইয়া-সাদ উদ্দিনদের সামনে ‘প্রতিশোধ’ নেওয়ার সুযোগ।