নিজেকে বদলে ফেলেছেন আশরাফুল

জাতীয় দল ও আশেপাশে থাকা ক্রিকেটারদের ছাড়া অন্যদের জন্য অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধা কম সেটি আরও একবার বললেন মোহাম্মদ আশরাফুল। এর আগেও কয়েকবার এ বিষয় নিয়ে কথা বলেছিলেন সাবেক এই অধিনায়ক। এবার অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে রাজধানী ঢাকার ছেলেদের ‘আনলাকি’ বলে মন্তব্য করেছেন লিটল ডিনামাইট খ্যাত আশরাফুল। অনেক পাওয়া না পাওয়ার মধ্যেই নিজেকে বদলে ফেলেছেন তিনি।

বাংলাদেশের ক্রিকেট মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামকে ঘিরেই। এখানেই আছে ইনডোরে অনুশীলন সুবিধা। আরও আছে আবাসিকভাবে থাকার সুব্যবস্থাসহ একাডেমি ভবন ও একাডেমি মাঠ। তবে মিরপুরে অগ্রাধিকার পান জাতীয় দল, এইচপিসহ (হাইপারফরমেন্স ইউনিট) জাতীয় দলের পুলে থাকা ক্রিকেটাররা। নারী জাতীয় দলেরও মূল কেন্দ্রও এটিই। তাই আশরাফুল আক্ষেপ না করে আর পারেননি।

আশরাফুল বলেন, ‘আসলে আমরা ঢাকার যারা ছেলে, আমরা আসলে আনলাকি। আমার খেলার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি। ২০ বছর আগে বাংলাদেশ টেস্ট স্ট্যাটাস পেয়েছে কিন্তু আমরা যারা ঢাকার ছেলে আমরা খুব আনলাকি কারণ অফ সিজনের ফ্যাসিলিটিজটা আমাদের নিজেদেরই তৈরি করতে হয়। আপনি জানেন যে আমাদের একটাই ইনডোর। সেখানে সব ন্যাশনাল টিম, এইচপি, মহিলা টিম, আন্ডার ১৯ তারাও প্র্যাক্টিস করে থাকে। যারা ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটার এবং যারা উঠতি ক্রিকেটার তাদের জন্য এই সুযোগ সুবিধাটা কম।’

তবে অনেক নেই-এর মধ্যেও নিজেকে দমিয়ে রাখেননি। কঠোর পরিশ্রম করে নিজেকে বদলে ফেলেছেন আমূলে। নিজের পরিবর্তন নিয়ে নিজেই উচ্ছ্বসিত, আত্মবিশ্বাসী। এতটাই পরিবর্তন এসেছে তার মধ্যে, যে তিনি নিজেই মনে করে আগে থেকে দক্ষতা বেড়েছে। হয়েছেন ফুরফুরে, ঝরঝরে।

কীভাবে সম্ভব হয়েছে এটা? আশরাফুল বলেন, ‘আমি এখন নিজেকে এভাবে চিন্তা করছি, আমি আসলে নতুন করে শুরু করতে চাই। আমার ফিটনেস বলেন স্কিল বলেন; শেষ ৮-৯ মাস আগে হয়তো এটা আমি চিন্তা করিনি। এখন আমি যে পজিশনে আসতে পেরেছি। ফিটনেস লেভেল বলেন, স্কিল বলেন, সবকিছুতেই আমি অতীত ভুলে গিয়ে সামনের দিকে এগোতে চাই। অনুর্ধ্ব ২৩ এর ছেলেদের সাথে যে ফিটনেস লেভেল লাগবে আমি সেটা করছি। অনুর্ধ্ব ২৩ এর ছেলের যে ফিটনেস থাকে আমার যেন সেটা থাকে। এটাই আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি শেষ ৭-৮ মাস ধরে।’

সামনেই আছে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ। পাঁচ দলের এই টুর্নামেন্টে খেলোয়াড়দের প্রাথমিক তালিকায় আছেন আশরাফুলও। এ জন্য আজ দিয়েছেন ফিটনেস টেস্ট। এতেও তার রিপোর্ট ভালোই (১১.৪) আসে। দল পাওয়া না পাওয়া বোঝা যাবে ১২ নভেম্বর। টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার কথা রয়েছে ২০-২২ নভেম্বরের মধ্যে।