লালমনিরহাটে রাম’দা দিয়ে কোপানো ভাটা এন্তার ছেলে সেই সন্ত্রাসী সোহেল গ্রেফতার

ছবিঃ সিসিটিভি ফুটেজ

 

পুলিশের হাতে আটক সোহেল রানা

লালমনিরহাট পুলিশের ব্যপক তৎপরতায় ঘটনার চারদিনের মাথায় আলোচিত সন্ত্রাসী সোহেল রানাকে গ্রেফতার করেছে সদর থানা পুলিশ।

জানা যায়, গত ২৭ অক্টোবর বিকেলে লালমনিরহাট সদর থানাধীন হাসপাতাল রোডস্থ আপনপাড়া মেসার্স শফিক ফিলিং ষ্টেশনে
পেট্রোল পাম্পে প্রকাশ্যে দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হামিদুর রহমানকে রাম’দা দিয়ে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে ভাটা এন্তার ছেলে সোহেল রানা।
ঘটনার কিছু পরে এই ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ পিপলস টিভি অনলাইনে https://peoplestv.online
সর্বপ্রথম প্রচার করলে সেটা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়।
ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই আসামীকে গ্রেফতারের জন্য গণ-মানুষের দাবী উঠে। পরদিন সদর উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে বিভিন্ন স্তরের মানুষ।
ঘটনায় আহত হামিদুর রহমান নিজেই বাদী হয়ে
মূল আসামী মোঃ সোহেল রানা (৩৫), পিতা মোঃ এন্তা মিয়া, সাং আপনপাড়া, থানা- লালমনিরহাট উল্লেখ করে লালমনিরহাট সদর থানায় মামলা করেন। যার নং-৩৯, তারিখ- ২৭/১০/২০২০

ঘটনাটি লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানার নজরে এলে তিনি যেভাবেই হোক সোহেলকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন।
পুলিশ সুপারের নির্দেশ পেয়েই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ- সার্কেলের সহযোগিতায় সদর থানার অফিসার ইনচার্জ এর নের্তৃত্বে এস আই মিজানুর রহমান বিশেষ অভিযানের মাধ্যমে সোহেলকে গ্রেফতার করেন।

ছবিঃ সিসিটিভি ফুটেজ

এদিকে বিভিন্ন বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, সন্ত্রাসী সোহেল সরকারি দলের এক নেতার শেল্টারে এতোদিন আত্মগোপনে ছিলো। তার নির্দেশনায় আজ সে পুলিশের হাতে ধরা দেয়। এ ব্যাপারে লালমনিরহাট নিউজ২৪ এর অনুসন্ধান চলছে।
সন্ত্রাসী সোহেলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস এবং মাদক সংক্রান্ত আরো ৫ টি মামলা রয়েছে। বর্তমানে সে মামলা গুলো আদালতে বিচারাধীন অবস্থায় রয়েছে।
সোহেলকে গ্রেফতারের ব্যাপারে লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম লালমনিরহাট নিউজ২৪ কে বলেন, ঘটনার পর থেকেই সদর থানা পুলিশ আসামি সোহেল কে গ্রেফতার অভিযান চালিয়ে আসছে। আজ তাকে ধরতে সক্ষম হয়েছি আমরা। বর্তমানে আইনি পক্রিয়া অব্যাহত আছে।