বাফুফের সভাপতি পদে লড়তে চাইলেও ভোট দিতেই আসেননি তিনি!

ক্রীড়া প্রতিবেদক,বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) নির্বাচনে খুব জোরেশোরেই প্রচার শুরু করেছিলেন ক্রীড়া সংগঠক ও ব্যবসায়ী তরফদার মো. রুহুল আমিন। দীর্ঘদিন ধরে বাফুফের প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচন নিয়ে সরব থাকলেও হঠাৎ ঘোষণা দিয়ে তিনি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান। নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর পর তিনি ভোটার হিসেবে ভোট দিতেও আসেননি।

আজ শনিবার দুপুর ২টা থেকে রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে বাফুফের ভোট শুরু হয়। এই নির্বাচনে ১৩৯ জন কাউন্সিলর একজন করে সভাপতি ও সিনিয়র সহ-সভাপতি, চারজন সহ-সভাপতি এবং ১৫ জন সদস্যকে ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত করবেন। নির্বাচনে চট্টগ্রাম আবাহনীর তরফদার মো. রুহুল আমিন ছাড়াও ফরিদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার নাজমুল ইসলাম লেভীও অনুপস্থিত রয়েছেন। অর্থ পাচার মামলায় খন্দকার নাজমুল ইসলাম লেভী কারাগারে রয়েছেন।

ফুটবল অঙ্গনে নানা সময়ে নানা কথা বলে আলোচনায় থাকা তরফদার মো. রুহুল আমিন চট্টগ্রাম আবাহনীর চেয়ারম্যান। তিনি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের অন্যতম ক্লাব সাইফ স্পোর্টিংয়ের কর্ণধার। একই সঙ্গে তিনি বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংগঠক পরিষদের সভাপতি এবং বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব অ্যাসোসিয়েশনেরও সভাপতি।

বহুল আলোচিত এবারের নির্বাচনে ২১ পদের জন্য লড়বেন ৪৭ প্রার্থী। দুটি প্যানেল প্রকাশ্যে নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছে। একটি হলো কাজী সালাউদ্দিন- সালাম মুর্শেদীর সম্মিলিত ফুটবল পরিষদ, অন্যটি হলো শেখ আসলাম-মহির নেতৃত্বাধীন সমন্বয় পরিষদ। এ ছাড়া প্রেসিডেন্ট পদে সালাউদ্দিনের বিপক্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন শফিকুল ইসলাম মানিক।