১৪ বছর পর পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা

দীর্ঘ ১৪ বছর পর পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দল। আগামী বছরের শুরুর দিকে দক্ষিণ আফ্রিকার জাতীয় ক্রিকেট দল পাকিস্তান সফরে যাবে। পাকিস্তান সফরে দক্ষিণ আফ্রিকা দুটি আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ খেলবে এবং তিনটি টি-টোয়েন্টি ইন্টারন্যাশনাল খেলবে। আজ বুধবার পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) একথা ঘোষণা করেছে।

পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার পর বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের তৃতীয় দল হিসেবে দেশটিতে সফর করবে তারা। গত বছরের শেষ দিকে শ্রীলঙ্কা এবং চলতি বছরের শুরুর দিকে পাকিস্তান গিয়ে টেস্ট খেলে এসেছে বাংলাদেশ দল।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম দ্য ডন জানায়, দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সফর শুরু হবে বন্দরনগরী করাচিতে টেস্ট দিয়ে। আগামী ২৬ থেকে ৩০ জানুয়ারি সেখানকার জাতীয় স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট খেলবে সফরকারীরা। এরপর করাচি থেকে তারা যাবে রাওয়ালপিন্ডি। সেখানে ৪ থেকে ৮ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকা দল। এরপর তারা লাহোরে যাবে। আগামী ১১, ১৩ এবং ১৪ ফেব্রুয়ারি লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে দুই দলের মধ্যে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সফরটি উপলক্ষে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধির ব্যবস্থা করা হবে। সফরকারীদের কয়েক দিন আইসোলেশনে রাখা হবে। তার পরই তারা নিয়মিত অনুশীলন এবং প্রশিক্ষণে অংশ নিতে পারবে।

দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সফরের বিষয়টি নিশ্চিত করে পিসিবির ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট বিষয়ক পরিচালক জাকির খান বলেন, পাকিস্তান সফরে সফরকারীরা গুরুত্বপূর্ণ তিনটি স্থানে ম্যাচ খেলবে। পাকিস্তান ক্রিকেট ও দর্শকদের জন্য এই খবর অবিশ্বাস্য ব্যাপার।

তিনি বলেন, পাকিস্তানে অন্যতম জনপ্রিয় দল হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ২০০৭ সালের পর থেকে তারা পাকিস্তানে আসেনি। কিন্তু তারপরও দর্শকরা তাদের পারফরম্যান্স নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করে আসছে। দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট দলকে পাকিস্তানের দর্শকরা স্বাগত জানানোর জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে বলে জানান জাকির খান।

অন্যদিকে, ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার পরিচালক গ্রায়েম স্মিথ বলেন, পাকিস্তানে খেলতে অনেক দেশই যাচ্ছে, এটি আনন্দের বিষয়। কারণ পাকিস্তানিরা ক্রিকেটপ্রেমী জাতি। দক্ষিণ আফ্রিকা দল তাদের মাঝে যেতে পেরে উৎসাহিত হবে।