সুকৌশলে রিয়াই খুন করেছেন সুশান্তকে!

বিনোদন ডেস্ক : সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবা নিজের এফআইআরে তার ছেলের মৃত্যুর জন্য রিয়া চক্রবর্তীকে দায়ী করেছেন৷ পাশাপাশি রিয়া-র ভাই ও তার পরিবারের নামও উল্লেখ রয়েছে৷ তার অভিযোগ পুরো পরিবার মিলে সুশান্তের টাকা লুট করছিল৷ এফআইআরে মোট ৭ টি দিকের কথা উল্লেখ করে তিনি তার ছেলের মৃত্যু তদন্তে সিট দিয়ে করানোর আবেদন করেছেন৷

রিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি সুশান্তকে পাগল ঘোষণা করানোর জন্য উঠে পড়ে লেগেছিলেন৷ সুশান্তের বাবা জানিয়েছেন ,তিনি বৃদ্ধ ফলে বেশি দৌড়দৌড়ি তার পক্ষে করা সম্ভব নয়, তাই তিনি এফআইআর পটনাতেই দায়ের করেছেন৷ তার অভিযোগ সুশান্ত আগে যে বাড়িটায় বাস করতেন সেখানে ভুতপ্রেত আছে বলে সেই বাড়ি তাকে ছাড়তে বাধ্য করেছিলেন রিয়া৷ তারপর সুশান্ত যে বাড়িতে আত্মহত্যা করেন সেই বাড়িটি ভাড়া নিয়েছিলেন সুশান্তের শেষ গার্লফ্রেন্ড৷ সেখানে তিনি নিজের পরিবারের লোকদের নিয়ে তার সঙ্গে থাকতেন৷

সুশান্তের বাবা অভিযোগে জানিয়েছেন, তার ছেলেকে পাগল প্রতিপন্ন করে অ্যাসাইলামে পাঠানোর তোড়জোড় শুরু করেছিলেন রিয়া৷ এর জন্য কোনও কারণ ছাড়াই ওকে মানসিক অসুস্থতার ওষুধ খাওয়াতে শুরু করেছিলেন৷ প্রথমে তাকে ডেঙ্গুর ওষুধ বলে মানসিক অসুস্থতার ওষুধ খাওয়াতে শুরু করেছিলেন, তারপর ড্রাগ ওভারডোজের জেরে মানসিক স্থিতাবস্থা আসতে আসতে হারিয়ে ফেলছিলেন তিনি৷

অভিযোগ এমনও রিয়া সুশান্তের মোবাইল নম্বর অবধি বদলে দিয়েছিলেন ৷ যাতে সুশান্ত নিজের পরিবার ও পুরনো লোকদের থেকে দূরে থাকেন৷ সুশান্তের অ্যাকাউন্টে থাকা কোটি কোটি টাকা রিয়া ও তার পরিবারের লোকেরা গায়েব করে দেন৷ সুশান্তের কোনও ফিল্মের অফার এলে রিয়াকেই হিরোইন নিতে হবে এরকম করার জন্য উস্কাতেন তিনি৷

সুশান্ত নিজের বন্ধু মহেশ শেট্টির সঙ্গে ফার্মিং শুরু করার বিষয়ে যখন ভাবনাচিন্তা করছিলেন তখন রিয়া চরম পদক্ষেপ নেন৷ সুশান্তের ক্রেডিট কার্ড, বাড়ির জরুরি কাগজ সবকিছু নিয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যান তিনি৷

এমনকী বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর সুশান্তের নম্বরও ব্লক করে দিয়েছিলেন তিনি৷ তিনি সুশান্তকে হুমকি দিয়েছিলেন যদি সে কোনও বাড়াবাড়ি করে তাহলে তার মেডিক্যাল সবকিছু সংবাদমাধ্যমের কাছে ফাঁস করে দেবেন তিনি৷ সুশান্ত মানসিক ভাবে অসুস্থ যদি বলিউড জানতে পারে তাহলে কেউ তাকে কাজ দেবে না এভাবেই ভয় দেখাতেন রিয়া৷ আত্মহত্যার আগে সুশান্ত খুব অস্বস্তিতে ছিলেন৷ তিনি মুম্বাইতে দেখা করতে বোনকেও ডেকেছিলেন৷

সুশান্তের বোনের সন্তান ছোট তাই সে ভাইয়ের কাছে দিন কয়েক থেকে ফিরে এসেছিল৷ এদিকে রিয়া নিয়মিত তার ব্ল্যাকমেলিং চালিয়ে যাচ্ছিলেন৷ সেক্ষেত্রে সুশান্ত যখন তারপরেও রিয়ার সঙ্গে প্যাচআপের চেষ্টা করছিলেন ও তাকে লাগাতার ফোন করছিলেন তখন তিনি সেই ফোন ধরেননি এবং নম্বর ব্লক করে দেন৷

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে